অনার্স ৩য় বর্ষের ব্যবহারিক পরীক্ষার সময়সূচী

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনার্স ৩য় বর্ষের তত্বীয় বিষয়গুলোর পরীক্ষা ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। করোনার কারণে স্থগিত রয়েছে অনার্স ৩য় বর্ষের বিভিন্ন বিভাগের ব্যবহারিক পরীক্ষা। এসব ব্যবহারিক পরীক্ষা না নেওয়ায় একদিকে যেমন ৩য় বর্ষের রেজাল্ট প্রকাশে বিলম্ব হচ্ছে। পাশাপাশি যাদের ব্যবহারিক আছে তাদের বাড়তি চাপে পড়তে হচ্ছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সূত্রে জানা গেছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অনার্স ৩য় বর্ষের ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবার পর কলেজ খুললেই ৩য় বর্ষের স্থগিত থাকা ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হবে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নোটিশে এ সংক্রান্ত তথ্য জানা যায়।

আরো পড়ুন-একাদশ শ্রেণীতে কাঙ্ক্ষিত কলেজে সুযোগ পাওনি তাদের ভর্তির মাইগ্রেশন প্রক্রিয়া যেভাবে সম্পন্ন হবে

এদিকে ফের বাড়ানো হয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি। করোনার কারণে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে এ ছুটি। করোনা কারণে পিছিয়ে পড়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষা কার্যক্রম। কয়েকমাস ধরেই বন্ধ রয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজসমূহ। যার ফলে স্থবির হয়ে পড়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে সকল কোর্সের ক্লাস-পরীক্ষা। এ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ক্রাশ প্রোগ্রাম করে ওভারকাম করার আভাস দিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য।

এমন পরিস্থিতিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় যেন পিছিয়ে না পড়ে এজন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন লাইন ভিডিও ক্লাস এর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। এ কার্যক্রমের আওতায় অনলাইনে ১৪৫৮ জন শিক্ষকের ১৪৫৮টি কোর্সে মোট ১৭ হাজার ৫০০টি ভিডিও ক্লাস অপলোড করা হবে। ৩১টি ডিসিপ্লিনের এই অনলাইন ক্লাস গ্রহণ সেপ্টেম্বরের মধ্যে শেষ হবে। একজন শিক্ষার্থী প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে খুব সহজে এই ভিডিও ক্লাস দেখতে পাবে।

অনার্স ৩য় বর্ষের ব্যবহারিক পরীক্ষার পাশাপাশি করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত রয়েছে ৪র্থ বর্ষ, মাস্টার্স শেষ পর্ব ও ডিগ্রী ২য় বর্ষের পরীক্ষা যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই শুরু হবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অনার্স ১ম ও ২য় বর্ষ, মাস্টার্স ১ম পর্ব, ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ও ডিগ্রী ১ম বর্ষের ফরম ফিলাপের ডেট দেওয়া হবে। খুব সল্প সময়ের মধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পিছিয়ে পড়া একাডেমিক ক্যালেন্ডার শেষ করা হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯ সালের অনার্স তৃতীয় বৰ্ষ পরীক্ষা ০৩ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ২৭ ফেব্রুয়ারিতে শেষ হয়। এ পরীক্ষায় ৩১ টি অনার্স বিষয়ে সারাদেশে ৭৯৭ টি কলেজের ৪ লাখেরও বেশি পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.